জীবন পথের বাঁকে বাঁকে


ভুমিকাঃ

নিজের ব্লগসহ দেশ বিদেশের নানা সামাজিক ব্লগে লেখালেখির মাধ্যমে কলম বা কী-বোর্ড সঞ্চালন শুরু করলেও লেখালেখির একটা সুপ্ত বাসনা সেই ছোটবেলা থেকেই মনের কোন এক কোণে জমে ছিল। নাবিক জীবনে কুল কিনারা বিহীন সাগরের নীল জলে ভেসে এবং
বিলাতের দিনগুলি কাটাবার সময় মনের মাঝে জমা কিছু কথা ডাইরির পাতায় লিখে রাখতাম। তা দেখে বন্ধু রফিকুল ইসলাম বলল আপনি এমন করে দিন রাত লিখছেন, তা এগুলোকে এ ভাবে খাতায় বন্দী করে না রেখে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দিন! আমাকে দিন এর অঙ্গসজ্জা থেকে শুরু করে যেখানে যা কিছু করতে হবে আমি করে দিচ্ছি।
মংলা বন্দরে কর্ম কালীন যে সব কবিতা লিখেছিলাম সেগুলোতে সুর দিয়ে গান লেখায় উদ্বুদ্ধ করেছিলেন মংলার দিগরাজের বন্ধু শতদল হালদার। যেমন নীল নীল সাগর তীরে, ওগো প্রেম, বাতায়নে ভাবি বসে একা, স্বর্ণালি সুন্দর এই দিন এবং মন আমার দোদুল দোলে কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে এই সব সাড়া জাগানো গানগুলো সে সময়েরই লেখা। এখনও তিনি অক্লান্ত ভাবে সুর করে চলেছেন। শুধু বললেই হল শতবাবু একটা গান দেখবেন? অমনিই এসে হাজির, কই দেখি কি লিখেছেন! যিনি এভাবে উৎসাহ এবং স্বীকৃতি দিয়েছেন তাকে কি আমি ভুলতে পারি? কখন যেন ঠাঁই করে নিয়েছেন আমার হৃদয়ের অনেকখানি জুড়ে। এই গানগুলি দিয়ে অদূর ভবিষ্যতে গানের এলবাম করার ইচ্ছেও রয়েছে।
গ্রন্থাকারেপ্রকাশের পূর্বে আমার বিভিন্ন লেখার বানান সংশোধনের আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক ভ্রাতৃপ্রতিম সুশান বর্মণ এবং কঠিন সমালোচনা করে আমার নানা ভুল ভ্রান্তি দেখিয়ে দিয়েছেন ভারতের অসম প্রদেশের তিনসুকিয়া কলেজের বাংলার অধ্যাপক ভ্রাতৃপ্রতিম সুশান্ত কর।
বইটি প্রকাশের ব্যাপারে অনেকেই নানা ভাবে উৎসাহ এবং তাগিদ দিয়েছেন। প্রকৃতপক্ষে সবার এই সম্মিলিত উৎসাহ এবং তাগিদের ফলেই বইটি প্রকাশ করা হয়ে উঠেছে এবং এ জন্য আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ।
ISBN: 978-984-90146-8-3

No comments:

Post a Comment

Follow by Email

Back to Top