ইন্টারাপ্টার

IMG_1538
সত্যি কথাই বলছি। আমাকে কিন্তু আপনারা কেও চিনতে পারবেন না। আপনাদের সাথে আমার তেমন করে আলাপ পরিচয় হয়নি তবে আমার নানা ভাইয়াকে আপনারা ভাল করেই জানেন, তার সাথে আপনাদের বেশ সখ্যতা আছে আমি জানি। যখন তিনি

অফিসে বা কলকারখানায় কাজের সময়

আমাদের এই বেকারের দেশে নিজের ক্ষুধা নিবারণের জন্য, পরিবারের ভরন পোষণের জন্য, সাময়িক সুখের সন্ধানের জন্য লক্ষ লক্ষ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষা নেয়া বা এক কথায় বলা যায় দেশের সর্বোচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত যুবক যুবতী একটি কর্ম সংস্থানের সুযোগ পাচ্ছে না।

লেডিস ফার্স্ট


টোনা এবং টুনির মাঝে গভীর প্রেম। কেও কাওকে ছাড়া থাকতে পারে না। এমনকি তারা এক সাথে থাকবে বলে একই কোম্পানিতে চাকরি নিয়েছে যাতে করে অন্তত কাজের সময় দুইজনকে খুব একটা বেশী সময় ধরে দূরে থাকতে না হয়।
একদিন তারা উভয়ে কাজ শেষ করে একটা পাব এ গিয়ে বসল অনেকদিন পরে দুই জনে এক সাথে একটু সুরা পান করবে।

আমাদের পারিবারিক বিবরণী

1. দাদিঃ সৈয়দা রেবেয়া খাতুন
জন্মঃ --
মৃত্যুঃ মঙ্গলবার ২৯.০৩.১৯৮১, বিকেল ৫.২৫
আজিমপুর গোরস্তান।
2.     আসাদ হোসেন বিশ্বাস (চাচা), মৃত্যুঃ সোমবার ১৫.১২.১৯৯৭, ১ পৌষ ১৪০৪

ছোট্ট যে জন



(Rafsan Chowdhury)
এমন একজন মানুষের কথা নিয়ে আজ এই লেখা যিনি আমার পরিবারের সবচেয়ে ছোট্ট মানুষটি। যার বয়স এখনও সাত মাস হয়নি। সবার চেয়ে ছোট বলেই হয়ত তার চাওয়াগুলিও তেমনি ছোট ছোট। একটুখানি মনোযোগ, একটুখানি

Follow by Email

Back to Top